HOT POST

Recent Post

বিনা টাকায় ফেসবুকে প্রমোট এবং বুস্ট করুন [সবাই পারবেন ]

বিনা টাকায় ফেসবুকে প্রমোট এবং বুস্ট করুন!
লেখার শুরুতে আমি বলেছি "বিনা টাকা" তবে "বিনামূল্য" বলিনি; শুধু ভার্চুয়াল নয় বরং রিয়েল লাইফেও ইফেক্টিভ কিছু পেতে হলে আপনাকেও বিনিময়ে কিছু দিতেই হবে.....
কি দিবেন আপনি???
মাথার মেরিট, সময় আর শ্রম; বস্তুত "টাকা" এর সুপার অল্টারনেটিভ হলো এই তিনটি সাবজেক্ট!!!
মনে করুন, আপনি বিনা টাকাতে আপনার একটি ফেসবুক পেইজ প্রমোট করতে চান কিংবা কোন পোস্ট বুস্ট করতে চান তাহলে কি করবেন?
সবার আগে আপনার ফেসবুক আইডির ফ্রেন্ডলিস্ট ঘেটে ঘেটে অন্তত ১০ জন ক্লোজ ফ্রেন্ডকে খুজে বের করুন যাদের আইডিতে রিচ ভালো।
এবার তাদেরকে অনুরোধ করুন আপনার পেইজটি কিংবা পোস্ট'টি যেন তারা টাইমলাইনে পোস্টের মাধ্যমে প্রমেট করে দেয়।
বিনা টাকায় ফেসবুকে প্রমোট এবং বুস্ট করুন!
ধুর ধুর ধুর....কি আজাইরা আলাপ; এইটা কোন ইফেক্টিভ টেকনিক হইলো নাকি...যত্তোসব!!!
আচ্ছা চলুন এইবার মাথা খাটিয়ে আরেকটু চিন্তা করি; ফ্রি প্রমোট করার প্রমোদ হবেই হবে....
মনে করি আপনি ১০ জন ক্লোজ ফ্রেন্ডকে আপনার উক্ত পেইজ/পোস্ট প্রমোট করতে কনভিন্স করতে পেরেছেন, যাদের প্রত্যেকের আইডিতে ৫০০০ একটিভ ফ্রেন্ড ( ম্যাক্সিমাম বিবেচনা করা হলো) তাহলে ১০ টি আইডিতে মোট এক্টিভ ফ্রেন্ড সংখ্যা হলো ১০x৫০০০=৫০০০০ জন।
অর্থাৎ আপনি যদি মাত্র ১০ জনকে প্রমোট করতে কনভিন্স করাতে পারেন তাহলে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার মানুষের নিকট আপনার পেইজ /পোস্ট'টি পৌছে যাবে।
উহু....এখানেই কিন্তু শেষ নয়!!!
উক্ত ৫০ হাজার মানুষের মধ্যে যদি ১০ হাজার জন পোস্টে লাইক/কমেন্ট করেন তাহলে ফেসবুক এলগারিদম অনুযায়ী উক্ত ১০ হাজার ফেসবুক আইডি'তেও x liked y post হিসেবে তাদের ফ্রেন্ডলিস্টের টাইমলাইনেও পৌছে যাবে [যেখানে x হলো ১০ হাজার ফেসবুক আইডি এবং y হলো আপনার প্রমোট করা কনটেন্ট] এইভাবেই ক্রমাগত ধারাবাহিক এলগারিদম সিস্টেমে আপনার কনটেন্ট পৌছে যেতে থাকবে......
এইটা তো গেল চেইন প্রমোশনাল সিস্টেম আইমিন এলগারিদম; এইবার আমরা শিখবো কিভাবে ম্যাক্সিমাম ইফেক্টিভ উপায়ে প্রমোট করা যায়:
(১) ফেসবুকে লাইক দিতে টাকা লাগে না; তবে লাইক অর্জন করার জন্য একটা নূন্যতম "Cause" থাকতে হবে।আপনি যদি বলেন "দয়া করে আমার পেইজে সবাই লাইক দিন" তাহলে নিশ্চিত থাকুন আপনার পশ্চাৎপদে কিক দিতে দিতেই বেশীরভাগ মানুষ স্ক্রলডাউন করে হারিয়ে যাবে.....
(২) ফেসবুকে লাইক পাওয়ার সবচেয়ে বড় উপায় হলো "ইমোশন" [এই জিনিসটা বাঙ্গালী পাবলিক ভালোই জানে তাই আর বুদ্ধি বাড়াতে চাইনা....]।
(৩) মনে করুন আপনি আপনার টেকনোলজি রিলেটেড একটি পেইজ প্রমোট করতে চাচ্ছেন,তাহলে প্রমোট করা বন্ধু তালিকা হতে এমন বন্ধুদের নির্বাচিত করুন যাদের লিস্টে টেকপ্রেমী কিংবা টেক-অনুসন্ধানী পাবলিক অপেক্ষাকৃত বেশী।
একইভাবে কসমেটিকস কিংবা সাজসজ্জা বিষয়ক পেইজ প্রমোট করতে ফিমেইল আইডি নির্বাচন করা উত্তম [এমনিতেই প্রমোট করার জন্য ফিমেইল আইডি নির্বাচন করায় মাচ-ইফেক্টিভ কেননা এইখানে রিচ আর ইমোশন দুইটাই বেশী থাকে]।
(৪) আপনি যদি একটি পেইজ প্রমোট করতে চান তাহলে শুধু পেইজ মেনশন কিংবা পেইজ লিংক দিলে চলবে না; আপনাকে বুদ্ধি খাটিয়ে পোস্ট লিখতে হবে।
পোস্ট'টি হয় ইমোশনাল হবে নয়তো লেখার মাঝে "পাবলিক বেনিফিট" বিষয়টা শো করাতে হবে।
এই যেমন "টেকনোলজি বিষয়ক সকল সহায়তা বিনামূল্যে পেতে লাইক দিন অমুক পেইজ"
(৫) পেইজ প্রমোট করতে লিংক এর বদলে পেইজটি মেনশন করবেন, মেনশন করতে @[পেইজ আইডি:] লিখবেন।
মনে রাখবেন আমরা ফেসবুকে সবাই শৌখিন তাই লিংক ক্লিক করার মতোন মানসিকতা আমাদের অনেকেরই থাকে না।
(৬) ফেসবুক লাইট এইচটিএমএল কালার কোড সাপোর্ট করে তাই দৃষ্টি আকর্ষন করতে কালার কোড দিয়ে প্রমোট কনটেন্টটি লিখতে পারেন।
তবে অনেকে যেহেতু ফ্রি ফেসবুক ইউজ করেন তাই ব্রাউজারে কিন্তু কালার শো করবে না এবং লেখাটির মাঝে অতিরিক্ত কোড পড়ার সময় বিড়ম্বনার সৃষ্টি করবে।
(৭) ফেসবুকে শেয়ার করার চাইতে কপি পেস্ট ইফেক্টিভ তাই প্রমোট কনটেন্ট শেয়ার না করে কপি পেস্ট করবেন।
(৮) প্রমোট কনটেন্টের কোথাও collected লেখার প্রয়োজন হলে সেটি পোস্টের শেষে উল্লেখ না করে পোস্টের প্রথম কমেন্টে মেনশন লিখবেন "কালেক্টেড ফ্রম অমুক পেইজ" তাহলে একইসাথে Two time প্রমোশন হয়ে যাবে।
(৯) পপুলার পাবলিক পেইজের কমেন্ট সেকশনে স্পামিং ভালো ইফেক্টিভ তবে এডমিন আইডি হতে এমনটা করা উচিত নয়। আর স্পামিং এর ধরন ডেভোলপ করতে না পারলে সেটা প্রায়ই বিরক্তিকর হতে পারে।
Continue Reding.... এর মাঝে পেইজ মেনশন করে ক্লিক তৈরী করতে পারেন:
@+[এখানে আপনার পেজের আইডি কোড:এখানে আপনার পেজের নামের symbol বা শব্দাংশ]এখনে লোভনিয় কিছু স্ট্যাটাস যেমন Gpসিম দিয়ে ফ্রি Internet ব্যবহার করুন । মোবাইল এবং কম্পিউটারের Setting এ গিয়ে@@+[0:[আবার আপনার পেজের আইডি কোড:1:continue reading]]
আবার আপনি যদি continue reading এর স্থলে দীর্ঘ প্রমোট কনটেন্ট লিখেন তাহলে মোবাইলে স্ক্রল ডাউন করার সময় অনিচ্ছাকৃতই অনেকে click করিয়ে আপনার পেইজে রিডাইরেক্ট করা সম্ভবপর।
(১০) আপনারা হয়তো ওয়েব SEO এর নাম শুনেছেন তবে আপনি চাইলে আপনার প্রমোট কনটেন্ট'টিতেও Facebook SEO করাতে পারেন। আপনার প্রমোট কনটেন্টের লেখার শেষে # ট্যাগে প্রচলিত ট্রেন্ডের টপিক লিখতে পারেন।
যেমন কিছুদিন আগে চললো #10_years_challenge কিংবা #we_want_justice
আপনি যদি আপনার প্রমোট কনটেন্টের শেষে এমন হ্যাশ ট্যাগ যুক্ত করেন তবে ফেসবুক সার্চবারে উক্ত শব্দ বা বাক্যাংশ কিংবা বাক্য লিখে সার্চ করলে অন্যরাও আপনার প্রমোট কনটেন্ট'টি সহজেই অপ্টিমাইজড হবে।
উপরের এতো লম্বা লেখা পড়ে যদি আপনার মনে হয় "ধূর এইটা কি কিছু হইলো নাকি" তাহলে আপনাকে আবার মনে করিয়ে দিচ্ছি "হুমমম... এইটাই হইলো; যদি আপনার ব্রেইন থাকে তাহলে টাকা ছাড়াই বিলিওনিয়ার হওয়ার সম্ভব"।
লেখাটি ফেসবুকে পষ্ট করেছেন Nishan Ahammed Neon
সকলের জন্য শুভকামনা ও ভালোবাসা রইলো।

Comments

Post a Comment

Say Whats Happed ?

Popular posts from this blog

এবার ইচ্চামতো Instagram Fllower বাড়িয়ে নিন ৷ [Termux]

আপনার ইউটিউব ভিডিও এবার ফ্রি বুস্ট করুন