HOT POST

Recent Post

পাঁচ ওয়াক্ত নামাযের প্রকৃত সময় ৷ কখোন নামাজ বেশি উপযোগি ৷


যরত আবু হুরায়রা রা. থেকে বর্ণিত, রসূলুল্লাহ স. ইরশাদ করেছেন, নিশ্চয় নামাযের ওয়াক্তের শুরু ও শেষ আছে। যোহরের নামাযের ওয়াক্ত শুরু হয় সূর্য (পশ্চিম আকাশে) ঢোলে পড়লে আর শেষ হয় আসরের ওয়াক্ত এলে। আসরের ওয়াক্ত প্রবেশ করলে তা শুরু হয় আর শেষ হয় সূর্যের কিরণ হলুদ হয়ে গেলে। মাগরিবের ওয়াক্ত শুরু হয় সূর্য ডুবে গেলে আর শেষ হয় পশ্চিম আকাশের আভা চলে গেলে। ইশার ওয়াক্ত শুরু হয় আভা চলে গেলে আর শেষ হয় রাত অর্ধেক হলে। আর ফজরের ওয়াক্ত শুরু হয় সুবহে সাদিক উদিত হলে আর শেষ হয় সূর্য উঠলে। (তিরমিযী: ১৫১) হাদীসের স্তর : সহিহ। ইমাম তিরমিযী রহ. হাদীসটির এ সনদের উপর কিছুটা আপত্তি করলেও ভিন্ন সনদে হাদীসটির এ বক্তব্যকে সহীহ বলেছেন। মুসনাদে আহমাদের তাহকীকে শায়খ শুআইব আরনাউত বলেন, হাদীসটির সনদ সহীহ এবং বর্ণনাকারীগণ বুখারী- মুসলিমের বিশ্বস্ত বর্ণনাকারী। (মুসনাদে আহমাদ -৭১৭২)। শাব্দিক কিছু তারতম্যসহ এ হাদীসটি মুয়াক্তা মালেক এবং নাসাঈ শরীফেও বর্ণিত হয়েছে। (জামেউল উসূল-৩২৭৪) সারসংক্ষেপ : এ হাদিস থেকে প্রমাণিত হয় যে, ফজরের ওয়াক্ত শুরু হয় সুবহে সাদিক উদিত হলে আর শেষ হয় সূর্য উদয়ের পূর্বক্ষণে। যোহরের ওয়াক্ত শুরু হয় যখন সূর্য পশ্চিম আকাশে ঢলে পরতে আরম্ভ করে। যোহর শেষ ও আসর শুরু হওয়ার ব্যাপারে এ হাদীসে পরিষ্কার সিদ্ধান্ত পওয়া যায়নি। তবে এ ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা সামনে আসছে। এ হাদীসে সূর্যের কিরণ হলুদ হওয়ার সুময়কে আসরের শেষ সময় বলা হয়েছে। তবে এটা আসরের উত্তম ওয়াক্তের শেষ। আর আসরের ওয়াক্ত বাকি থাকে সূর্য ডুবার পূর্ব পর্যন্ত। সামনে তার দলীল আসছে। মাগরিবের ওয়াক্ত শুরু হয় সূর্য ডুবার সাথে সাথে। আর মাগরিবের ওয়াক্ত শেষ হয় সূর্যের আভা নিভে গেলে। ইশার ওয়াক্ত শুরু হয় মাগরিবের ওয়াক্ত শেষ হলে। আর ইশার শেষ ওয়াক্তের ব্যাপারে এ হাদীসে অর্ধরাত্রির কথা বলা হয়েছে। তবে এটা উত্তম ওয়াক্তের শেষ। আর ইশার জায়েয ওয়াক্ত ফজরের পূর্ব পর্যন্ত বাকি থাকে। সামনে তার দলীল আসছে।

Comments

Popular posts from this blog

বিনা টাকায় ফেসবুকে প্রমোট এবং বুস্ট করুন [সবাই পারবেন ]

আপনার ইউটিউব ভিডিও এবার ফ্রি বুস্ট করুন

Responsive Palki 2 Blogger Premium Templat For Free 2019